১৪ এপ্রিল, ২০২৪
সম্পাদকীয়

সুর-বেসুরের উপাখ্যান

দলবদলকারীদের ভাবমূর্তি সাধারণের কাছে কতটা ধনাত্মক, বিচারের সময় এসেছে
Red green trees Bengali News
প্রতীকী ছবি
koustav-chatterjee
কৌস্তভ চ্যাটার্জী
প্রকাশিত: ১০ জুন ২০২১
শেষ আপডেট: ১০ জুন ২০২১ ২৩:৩০

একুশের বিধানসভা নির্বাচনকে একটা ঘটনা ধরলে তাকে কেন্দ্র করে ঘনঘটার একশেষ। নির্বাচনের প্রাক্কালে যারা দলে থেকে কাজ করতে পারছিলেন না কিম্বা ব্যক্তিগত মতামতের গুরুত্ব প্রতিষ্ঠায় ব্যর্থ হচ্ছিলেন তারা সংগঠন ও শীর্ষ নেতৃত্বের ওপর দায় চাপিয়ে সহজেই দলবদলের পথে হাঁটলেন। সম্মুখে একাধিক দল থাকলেও উন্নততর অবস্থানের আশায় একটি বিশেষ বিকল্প দলের ছত্রছায়ায় এলেন। সাড়ম্বরে স্বাগত হলেন নতুন রঙে। জোরকদমে চলল পুরোনো দলের প্রতি ক্ষোভ উগরে দেওয়ার হিড়িক। জনসভা তথা গণমাধ্যম সূত্রে ব্যক্তিগত ক্ষোভ, দলীয় ও প্রশাসনিক স্তরে কতটা নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে, দেখানো হল খতিয়ান। আরও শক্তিশালী সংগঠনের আশায়, এবং খুব স্পষ্টভাবে বলতে গেলে বঙ্গ শাসনের এই 'সোনার' সুযোগ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে দূরত্ব কমল রাজধানী ও তিলোত্তমার।

এখন ভোটপুজো মিটেছে। পুজোয় কে কতটা সিদ্ধিলাভ করেছে তা কিছুটা 'সুর' থেকেই আন্দাজ করা যায়। কাজের জন্য যারা হাপিত্যেশ করেছেন, তারা কি নতুন অবস্থানে গিয়ে কাজের দায়িত্ব পেয়েছেন? বা মনোনীত হয়েও কি মনের কথা শোনার পদে আসীন হতে পেরেছেন? প্রায় ৯৫ শতাংশ ক্ষেত্রেই আপাদমস্তক বিফলতা পরিলক্ষিত। এখন বলা যেতেই পারে, জয়লাভই সিদ্ধিলাভ - এমনটা ভাবার কোনো কারণ নেই। অবস্থান ও লড়াইয়ের প্রাসঙ্গিকতা প্রতিষ্ঠা করার জন্যেও সময় চাই যা সুরবদল বা বেসুরো তান ধরার মত আকষ্মিকভাবে সম্ভবপর হতে পারেনা। কিন্তু সময় কই? ইতিমধ্যেই ফের সুর বদলে আগের অবস্থানে ভিড়তে চেয়ে অনেকেই ক্ষমাপ্রার্থী হয়েছেন আবার অনেকে ইঙ্গিতবহ বার্তায় আত্মপক্ষ সমালোচনা করে সুরবদলের আভাসকে স্পষ্ট করছেন। এই নবগঠিত ভিড়ে কখনো সশব্দে অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসছে, কেউ মৌনতার মারফৎ মতপার্থক্যকে প্রকট করছেন।

এখন কথা হল, সুর যদি মুহুর্মুহু বদলাতে থাকে, শ্রোতার বোধগম্যতায় বিড়ম্বনা অভিপ্রেত। অনুগামীদের কথা বাদ রেখে, আমজনতায় নজর দিলে দেখা যায়, এ সুরবদল এক হাস্যকর বিষয় রূপে পরিগণিত হয়েছে। আদর্শকে গুলি মারা যথাযথ, কারণ 'সময়োপযোগী স্ট্র্যাটেজি' প্রয়োজনীয়, এমন যুক্তি প্রদর্শনকারী বোদ্ধারাও বাক হারিয়েছেন সুবিধাবাদিতার বহর দেখে। কিন্তু মন্ত্রী-আমলা-অনুগত-বোদ্ধা-বিশ্লেষকদের সরিয়ে রেখে পড়ে থাকে গণতন্ত্রের সবচেয়ে বড় স্তম্ভ - জনার্দন জনতা। তাদের অবস্থান কোথায় হবে একটু ভেবে দেখলে ভালো হয়।

আরও খবর

বিজ্ঞাপন দিন

[email protected]

১৬ মার্চ

হুগলি থেকে তৃণমূলের হয়ে প্রার্থী হয়েছেন টলি তারকা রচনা বন্দ্যোপাধ্যায়

Rachana 1
১১ ফেব্রুয়ারি

নির্বাচনের আগে তাৎপর্যপূর্ণ সফর

Narendra Modi
১৩ জানুয়ারি

ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিন এবং হেমাটোলজির চিকিৎসকরা মদন মিত্রকে দেখছেন

Madan mitra white
১২ জানুয়ারি

সকলকে স্বামীজির মতাদর্শ মেনে চলার পরামর্শ অভিষেকের

Abhishek Swami ji
৩১ আগস্ট

রাখি বন্ধনের দিন ‘জলসা’য় পৌঁছে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী

Mamata Amitabh house
২২ আগস্ট

পুরোহিতদেরও মাসিক ভাতা ৫০০ টাকা করে বাড়ানো হয়েছে

Mamata Banerjee smilee
২০ আগস্ট

যাদবপুর-সহ নানা বিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলেও, কোনও উত্তর দেননি ডায়মন্ডহারবারের সাংসদ

Abhisekh White sit boom
২২ জুলাই

বিজেপিকে মহিলারাই দেশ থেকে বের করে দেবে : মুখ্যমন্ত্রী

Mamata Banerjee rain
১৩ জুলাই

২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের অঙ্ক হতে পারে না, কমপক্ষে ৫০ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে : তোপ শুভেন্দু অধিকারীর

Mamata Banerjee smilee
১১ জুলাই

খুন সংঘর্ষ, গা জোয়ারি কিছুই বাদ নেই : রাজ্যপাল

madan mitra 2
২৪ জুন

মঙ্গলবার জলপাইগুড়ির মালবাজারে জনসভা করবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Mamata Banerjee smilee
৩০ মে

তাঁর সৃষ্টিতে নারীই হয়ে ওঠেন মূল 'প্রটাগোনিস্ট', চরিত্র নির্মাণে ছক ভেঙেছিলেন ঋতুপর্ণ ঘোষ

Rituparno Ghosh
২৭ মে

বাড়ি-অফিস খুঁজে মোটে আটটি ২০০০ টাকার নোট পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী

Mamata tmc
১৮ মে

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে ২৫ লক্ষ টাকা জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি

Abhisekh White sit boom